শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ০৫:৪১ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

রাজশাহীর বাগমারায় রাতের আঁধারে এসিড নিক্ষেপে একই পরিবারের আহত চার জন
খোরশেদ আলম,স্টাফ রিপোর্টার / ৯৫ বার
আপডেট : শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার শুভডাঙ্গা ইউনিয়নের বাঁইগাছা গ্রামে এসিড নিক্ষেপে একই পরিবারের চার জন আহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

এসিডে আক্রান্ত ব্যাক্তিরা হলেন বাঁইগাছা গ্রামের মহির উদ্দিনের ছেলে মো: আফজাল হোসেন (৩৫) তার স্ত্রী মোছা: রুমা বিবি, আফজালের দুই মেয়ে মোছা: মলি (০৭) ও অপর মেয়ে মোছা: আফসানা ( ০২ মাস) তারা সকলেই এখন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তী আছে।

ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল রাত আনুমানিক তিনটার দিকে। সরেজমিনে তদন্তে গেলে আফজালের ভাই মো: তোফাজ্জল হোসেন জানান, নিত্য দিনের সাংসারিক কাজকর্ম সেরে তারা সপরিবারে আপন কক্ষে ঘুমিয়ে পড়ে। হঠাৎ রাত আনুমানিক তিনটার দিকে কে বা কারা ঘরের উত্তর পাশের জানালা দিয়ে তাদের চোখে মুখে এসিড ছুড়ে মারে। যা থেকে তাদের চোখ মুখ অসম্ভব রকমের জালা পোড়া করে।

তখন তারা চিৎকার চেঁচামেচি করতে থাকে। তাদের ডাক চিৎকারে আমি এবং আমার কয়েকজন প্রতিবেশী সহ আরো অনেকে ঘটনা স্থলে ছুটে যাই। গিয়ে দেখি আমার ভাই আফজাল ও তার স্ত্রী সহ সকলের গায়ে মর্টার দিয়ে পানি দেওয়া হচ্ছে। তারপর সকালে আমার ভাতিজা এমরানের সহায়তায় আহতদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছি।

আহত আফজালের ভাতিজা মাসুদ রানা বলেন পুর্ব শত্রæতার জের ধরে এই ঘটনা ঘটতে পারে বলে সন্ধেহ করা হচ্ছে।

এ দিকে ঘটনাটিকে কেন্দ্র করে এলাকায় নানা গুঞ্জন ও চা ল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এলাকাবাসি জানান আফজাল এক সময় পরকিয়া প্রেমে জড়িয়ে তার নিজ গ্রামেই আরও একটি বিবাহ করেছিল, এবং তাদের মধ্যে বনিবনা না হওয়ায় ছাড়াছাড়ি হয়ে গেছে।

কিন্তু ঘটনার জের হয়তোবা আজও থাকতে পারে এবং সেখান থেকে এই এসিড নিক্ষেপের ঘটনা ঘটতে পারে বলে জানিয়েছে তারা। অপর দিকে একই গ্রামের আফজালের দ্বিতীয় স্ত্রী মোছা: নাসিমা বিবি বলেন ঘটনার সময় আমি আমার বাবার বাড়িতে ছিলাম এ ব্যাপারে আমি তেমন কিছুই জানিনা। তবে আফজালের সাথে আমার স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক এখনও আছে বলে তিনি দাবী করেছেন।

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিৎ করে বাগমারা থানার পুলিশ কর্মকর্তা ওসি আতাউর রহমান বলেন আমরা ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেছি। ভিকটিমদের জিজ্ঞাসাবাদ করার পর তদন্ত শেষে প্রকৃত অপরাদীদের গ্রেফতার করে আইনের অওতায় আনা হবে। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলা করা হয়নি।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ