মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ০৬:৪৫ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

কুলিয়ারচরে ১২০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও ১ কেজি গাঁজাসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ী আটক
মৌসুমী আক্তার, কুলিয়ারচর প্রতিনিধি / ২৮ বার
আপডেট : মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০

মাদকে ছেয়ে গেছে দেশ

মাদকের বিষাক্ত ছোবল থেকে যুব সমাজকে রক্ষায় কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচর থানা পুলিশ তৎপর। একের পর এক অভিযান পরিচালনা করে উদ্ধার করে যাচ্ছে মাদক। এরই ধারাবাহিকতায় ১২০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও ১ কেজি গাজাসহ মো. নাজমুল (৩০), মো. রকিব মিয়া (১৯) ও মো. শফিকুল ইসলাম (২১) নামে ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে কুলিয়ারচর থানা পুলিশ।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে কুলিয়ারচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ কে এম সুলতান মাহমুদের নির্দেশনায় বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) সন্ধ্যার আগমূহুর্তে থানার এস আই মো. আতাউর রহমান পুলিশ অফিসার ও ফোর্স নিয়ে উপজেলার বাজরা তারাকান্দি বাসস্ট্যান্ডে অভিযান চালিয়ে ওই ৩ মাদক অব্যবসায়ীকে মাদক বিক্রয়ের সময় আটক করে।

আটককৃত মাদক ব্যবসায়ী মো. নাজমুল (৩০) বি-বাড়ীয়া জেলার বিজয়নগর উপজেলার
কালাছাড়া (কালাচড়া) গ্রামের মো. হারুন ভূ্ইয়ার ছেলে ও মো. রকিব মিয়া (১৯) একই উপজেলার বিষ্ণুপুর গ্রামের মো. ফিরুজ মিয়ার ছেলে এবং মো. শফিকুল ইসলাম (২১) ময়মনসিংহ জেলা সদরের চর ভবানীপুর গ্রামের করম খানের ছেলে।

এ ঘটনায় থানার এস আই মো. আলী আকবর বাদী হয়ে ৩ জনের বিরুদ্ধে কুলিয়ারচর থানায় মাদক আইনে একটি মামলা দায়ের করে।

এর আগে গত ১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বিকালে ৫৭৫ বোতল ফেনসিডিলসহ রুমান মিয়া (২০) নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে পুলিশ। রুমার মিয়া ব্রাহ্মণবাড়ীয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার সোনাতলা গ্রামের মো. মিজান মিয়ার ছেলে।

গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই মুহাম্মাদ আজিজুল হকের নেতৃত্বে গত ১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার বিকাল সাড়ে ৫ টার দিকে কুলিয়ারচর পৌরসভার খরকমারা মহল্লায় আইডিয়াল এস এইচ উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন মাঠে অভিযান চালিয়ে ৪ বস্তা ভর্তী ৫৭৫ বোতল ফেনসিডিলসহ ওই মাদক ব্যবসায়ী রুমানকে আটক করে। এ সময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অন্য আরেক মাদক ব্যবসায়ী পালিয়ে যায়।

এ ঘটনায় আটককৃত মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে কুলিয়ারচর থানা পুলিশ বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ এর ৩৬ (১) এর ১৪ (গ) ধারায় মামলা রজু করে। মামলা নং- ৩।

থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এ কে এম সুলতান মাহমুদ বলেন, ৮ অক্টোবর আটককৃত ৩ মাদক ব্যবসায়ী দেশের বিভিন জেলা ও উপজেলায় মাদক বিক্রয় করে যুব সমাজকে ধ্বংশের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে বিজ্ঞ আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে তাদের।

এ ছাড়া তিনি অপরাধ নির্মূলে নতুন নতুন উদ্যোগ হাতে নিয়েছেন উল্লেখ করে সকলের সহযোগীতা চেয়ে বলেন, কুলিয়ারচর থেকে মাদক ও অপরাধমুক্ত করার লক্ষে চারপাশে ঘটে যাওয়া অপরাধ ও অপরাধীদের আইনের আশ্রয়ে এনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনে কুলিয়ারচর থানা পুলিশ নব উদ্যমে কাজ শুরু করেছে।
তিনি বিবেকের কাছে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ এমন দাবী করে আরো বলেন, সকলের ঐকান্তিক সহযোগীতায় কুলিয়ারচর থানা এলাকাকে মাদকমুক্ত করতে চাই । মাদক বিক্রেতা, মাদক সেবনকারীসহ যে কোন অপরাধের সাথে জড়িত অপরাধীদের সম্পর্কে তথ্য দিয়ে পুলিশকে সহযোগীতা করার জন্য সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি, সুশীল সমাজের গন্যমাণ্য ব্যক্তিবর্গ ও এলাকাবাসীর প্রতি আহবান জানিয়ে তিনি আরো বলেন, অপরাধীরা যত বড় শক্তিশালীই হোক না কেন সঠিক তথ্য ও প্রমান পেলে তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হইবে ইনশাআল্লাহ। তবে কাউকে হয়রানী করা, শত্রুতা হাসিল করার জন্য দয়া করে মিথ্যা তথ্য না দেওয়ার জন্য বিনীত ভাবে অনুরোধ করেন তিনি ।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ