শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ০১:৩১ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

সরিষাবাড়ীতে ধর্ষনের চেষ্টা অভিযোগে গ্রাম্য সালীশে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা
তৌকির আহাম্মেদ হাসু সরিষাবাড়ী(জামালপুর)থেকে / ১৬৫ বার
আপডেট : শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে ধর্ষনের চেষ্টা অভিযোগ এনে গ্রাম্য সালীশে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।ঘটনাটি উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের হাটবাড়ী(মৌলভী পাড়া) গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে।ধর্ষনের চেষ্টা ঘটনায় গ্রাম্য সালীশের রায় হিসেবে লম্পট আবুল হোসেন ৫০ হাজার টাকা গতকাল মঙ্গলবার মাতাব্বরের নিকট জমা দিয়েছে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় ও ভুক্তভোগী পরিবার সুত্রে জানা গেছে-সরিষাবাড়ী উপজেলার ডোয়াইল ইউনিয়নের হাটবাড়ী(মৌলভী পাড়া) গ্রামের তোতা মিয়ার স্ত্রী দুই সন্তানের জননী পারুল খাতুন (২৪) কে ফুসলিয়ে নিয়ে গত রোববার রাতে একই বাড়ীর আবুল হোসেন(৫০)ধর্ষনের চেষ্টা করে।এ ঘটনাটি ধর্ষনের চেষ্টা শিকার পারুলের ভাসুর আনিছুর রহমান দেখেন এবং তাদেরকে ধরে ফেলে ডাক চিৎকার দেয়।এ ঘটনা এলাকায় ছডিয়ে পড়লে গত সোমবার সন্ধা রাত ৭ টা থেকে রাত ১১ টা পর্যন্ত তোতা মিয়ার বাড়ীতে ঘটনার মিমাংসার জন্য এক গ্রাম্য সালীশ হয়। উক্ত গ্রাম্য সালীশে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য সুরুজ্জামান কে সভাপতি হিসেবে এবং পরিচালক হিসেবে মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক কে মনোনিত করা হয়।স্থানীয় মাতাব্বরদের ঘটনার স্বাক্ষীদের জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষনের চেষ্টার সত্যতা পাওয়ায় আবুল হোসেনকে দোষী সাব্যস্থ করে সালীশের মাতাব্বরগন ৫ সদস্যর জুরী বোর্ড গঠন করেন।জুরি বোর্ডের সিদ্ধান্তে লম্পট আবুল হোসেন এর ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও কান ধরে ওঠ বস করা সহ জোর হাত করে গ্রাম্য সালীশের লোকজনের কাছে ক্ষমা চাওয়ার সিদ্ধান্ত দেয়। সালীশের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে আবুল হোসেন তার পালিত ১টি গরু বিক্রি করে মাতাব্বর ফজলুল কেরানীর নিকট গতকাল মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাতে জরিমানার টাকা জমা দেওয়া হযেছে বলে আবুল হোসেন এর মেয়ে আল্পনা খাতুন সাংবাদিকদের জানান।এ ঘটনা এলাবাসীর মাঝে নানা সমালোচনা চলছে।
এ বিষয়ে পারুলের মা হামিদা জানান, আমার মেয়ে এবং দুই নাতির কি হবে। আমার মেয়েকে কে বিয়ে করবে। আমি এর বিচার চাই।
এ ব্যাপারে পারুলের স্বামী তোতা মিয়া জানান, আমার স্ত্রীকে আবুল হোসেন ধর্ষন করেছে। আমি পারুল কে তার বাপের বাড়ীতে পাঠিয়ে দিয়েছি।ওকে নিয়ে আর ঘর সংসার করবো না।জরিমানার টাকাও নিব না।
এ ঘটনার সালীশের সভাপতি সাবেক ইউপি সদস্য সুরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ঘটনাটি ন্যাক্কার জনক,স্বাক্ষীদের জবানবন্দীর আলোকে আবুল হোসেন কে দোষী সাবস্থ্য করে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। জরিমানার টাকা ফজলুল কেরানীর নিকট জমা হয়েছে ।জানতে চাইলে ডোয়াইল ইউপি চেয়ারম্যান নাছির উদ্দিন রতন জানান, এ ঘটনা আমাকে কেউ জানায় নি। আমি কিছু জানিনা।
সরিষাবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ আবু মোঃ ফজলুল করীম জানান, এ ঘটনা আমার জানা নেই।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ