বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১০:১১ অপরাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

তানোর কৃষি কলেজ শিক্ষা বিস্তারে অনন্য ভূমিকা রাখছে
বেনজির আহমেদ তানোর রাজশাহী প্রতিনিধিঃ / ৪০ বার
আপডেট : বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০

রাজশাহীর তানোরে গ্রামীণ জনপদের অধিবাসিদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের (ছেলে-মেয়ে) মধ্যে কৃষি শিক্ষা বিস্তারে অনন্য অবদান রেখে চলেছে তানোর কৃষি প্রযুক্তি ইন্সটিটিউট এবং গ্রামীণ পরিবেশেও শহরের মতো আধূনিক পাঠদান দেয়া হচ্ছে।

অত্যন্ত মনোরম ও নিরিবিলি পরিবেশ, নেই কোনো হৈহুল্লোড়, নেই কোনো কোলাহল একদম নিরব-নিস্তব্ধ। তানোর উপজেলা সদর থেকে মাত্র আড়াই কিলোমিটার দুরে তানোর-চৌবাড়িয়া রাস্তার চাপড়া বাজারে অবস্থান প্রতিষ্ঠানটির। গ্রামীণ পরিবেশ তবে শহরের মতো আধূনিক মানসম্মত পাঠদানের কোনো কমতি নেই। শহরের নামিদামি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে পাঠদানের যেসব সুযোগ-সুবিধা থাকে তার যেনো পুরোটাই রয়েছে এখানে।

প্রতিষ্ঠানটির রয়েছে একদল দক্ষ ও অভিজ্ঞ শিক্ষক মন্ডলী। যারা কৃষি বিষয়ে মানসম্মত আধূনিক পাঠদানের মাধ্যমে পাবলিক পরীক্ষায় ধারাবাহিক সাফল্য ধরে রেখেছেন। অধ্যক্ষ ইসাহাক আলীর আন্তরিক প্রচেস্টা, পরিচালনা কমিটি, অভিভাবক ও শিক্ষকদের সহায়তায় কলেজের সেই সম্ভবনা তৈরী হয়েছে। অধ্যক্ষ ও শিক্ষকদের আন্তরিক প্রচেস্টায় সম্ভব হচ্ছে শতভাগ উপস্থিতিতে টেকশই পাঠদান মূল্যায়ন এবং শিক্ষার্থী ও অভিভাবক পর্যায়ে স্বপ্ন বিনির্মাণ। উন্নত ও বাস্তব সম্মত শিক্ষার জন্য চলছে, প্রশিক্ষণ ও বিশ্লেষণ।

জানা গেছে, বিগত ২০১০ সালে চাপড়া বাজার এলাকায় তানোর কৃষি প্রযুক্তি ইন্সটিটিউট প্রতিষ্ঠা করেন শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ ইসাহাক আলী। এই কলেজ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে তানোরের ছেলেমেয়েদের কৃষি শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ সৃস্টি হয়েছে। শহর বা গ্রাম বলে কোনো কথা নয় প্রতিষ্ঠান প্রধানের
সদিচ্ছা থাকলে যে কোনো স্থানে সুন্দর পরিবেশে সৃষ্টি ও মানসম্মত শিক্ষা প্রদান করে শিক্ষাক্ষেত্রে অবদান রাখা যায় অধ্যক্ষ ইসাহাক আলী তার উজ্জ্বল
দৃষ্টান্ত। কলেজে কৃষি বিষয়ে নিয়মিত বিতর্ক প্রতিযোগীতা, চিত্রাঙ্কন, খেলা-ধূলা ও বিভিন্ন জাতীয় দিবস উদযাপন করা হয় এতে একদিকে শিক্ষার্থীরা যেমন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ অন্যদিকে সৃজনশীল ও মননশীল হিসেবে গড়ে উঠছে। কলেজের অবকাঠামো, শিক্ষাপোকরণ, জনবল, শিক্ষার্থী ও পাবলিক পরীক্ষায় ভাল ফলাফল ধরে রেখেছেন। এসব বিবেচনায় কলেজটি এমপিওভুক্তির তালিকায় স্থান করে নেয়। কিন্ত্ত পরবর্তীতে রহস্যজনক কারণে এমপিওভুক্তির তালিকা থেকে এই কলেজের নাম প্রত্যাহার করা হয়েছে। এতে কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীরা মানবেতর জীবনযাপন করছে। আওয়ামী লীগ কৃষিবান্ধব সরকার তাই এই জনপদের মানুষের দাবি কলেজের এমপিওভুক্তির আদেশ দিয়ে কৃষি শিক্ষা বিস্তারে সহায়তা করবেন সরকার বলে তারা আশাবাদ ব্যক্ত করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃস্টি আকর্ষণ করেছেন।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ