শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৫৪ অপরাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

খাদ্য মজুদের বিরুদ্ধে কঠোর বার্তা দিয়ে গণবিজ্ঞপ্তি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসকের।
ইমাম হাসান জুয়েল,চাঁপাইনবাবগঞ্জ / ৩৪ বার
আপডেট : শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০

দেশের দ্বিতীয় সবোর্চ্চ চাল উৎপাদনকারী জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জে খাদ্যশস্য ও খাদ্যসামগ্রী মজুদের বিভিন্ন বার্তা দিয়ে গণবিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন জেলা প্রশাসক এ জেড এম নূরুল হক।

বৃহস্পতিবার রাত ৯টা ১৮ মিনিটে অবৈধ খাদ্য মজুদের বিরুদ্ধে কঠোর বার্তা জানিয়ে “জেলা প্রশাসক চাঁপাইনবাবগঞ্জ” এই ফেসবুক আইডি থেকে একটি গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেন তিনি। এতে জেলা প্রশাসক অত্যাবশ্যকীয় পণ্য নিয়ন্ত্রণ আইন-১৯৫৬ এর ৩ ধারায় খাদ্যশস্য ও খাদ্যসামগ্রী মজুদের পরিমাণ ও মেয়াদ উল্লেখ করে বার্তা দেন।

গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়- অত্যাবশ্যকীয় পণ্য নিয়ন্ত্রণ আইন-১৯৫৬ এর ৩ ধারা অনুযায়ী পাইকারি ব্যবসায়ীগণ সর্বোচ্চ ৩’শ মেট্রিক টন ধান/চাল ৩০ দিন, খুচরা ব্যবসায়ীরা সর্বোচ্চ ১৫ মেট্রিক টন ধান/চাল ১৫ দিন, আমদানীকারকগণ আমদানী করা পণ্যের শতভাগ ধান/চাল ৩০ দিন মজুদ করতে পারবেন। এছাড়াও অটোমেটিক/মেজর/হাসকিং শ্রেণীর চালকলগুলো ৩০ দিন পর্যন্ত পাক্ষিক ছাটাই ক্ষমতার ৫ গুণ এবং ১৫ দিন পর্যন্ত পাক্ষিক ছাটাই ক্ষমতার দ্বিগুণ চাল মজুদ করতে পারবে। গণবিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, লাইসেন্স ছাড়া কোন ব্যবসায়ী ১ মেট্রিক টনের বেশি খাদ্যসামগ্রী নিজের অধিকার বা নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারবেন না।

অবৈধ মজুদের বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারি দিয়ে জেলা প্রশাসক আরো জানান, অত্যাবশ্যকীয় পণ্য নিয়ন্ত্রণ আইন-১৯৫৬ এর ৩ ধারা অনুযায়ী উল্লিখিত মজুদের পরিমাণ ও মেয়াদ সংক্রান্ত নির্দেশনা অমান্য করলে এবং বিনা লাইসেন্সে কোন ব্যবসায়ী ১ মেট্রিক টনের বেশি খাদ্যসামগ্রী নিজের অধিকার বা নিয়ন্ত্রণে রাখলে সংশ্লিষ্ট মালিক এবং কর্মচারীর বিরুদ্ধে আইনানুগ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ