শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ০৫:৫৮ অপরাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিল্পীকে লাবীব অটোর পক্ষ থেকে রিচার্জেবল সাউন্ড বক্স প্রদান
স্টাফ রিপোর্টার খোরশেদ আলম / ৭০ বার
আপডেট : শনিবার, ১৫ মে ২০২১

মানুষ বেঁচে থাকার জন্য নানা পথ অবলম্বন ও নানা কর্ম করে থাকেন। পাগলেও টাকা চিনে। কারন টাকা ছাড়া পৃথিবীতে কোন কিছুই পাওয়া সম্ভব নয়। তবে কিছু কিছু বিষয় আছে সেখানে হয়ত টাকা লাগেনা। আর অর্থ উপার্জন করতে হলে কর্শ করতে হয়। কেউ অসৎ পথ অবলম্বন করে দ্রুত টাকা ওয়ালা হয়ে যায়।

আবার অনেক আছে সততার সাথে অর্থ উপার্জন করে সংসার পরিচালনা করে। তবে সমাজে বেশীর ভাগ প্রতিবন্ধি মানুষকে ভিক্ষা কিংবা অপরের নিকট থেকে চেয়ে দিনাদিপাত করতে যায়। আবার অনেক প্রতিবন্ধি আছে যারা শারীরিক অক্ষমতা নিয়েও সমাজে মাথা উঁচু করে দাঁড়ানোর জন্য কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। তাদের মধ্যে দৃষ্টি প্রতিবন্ধি উজ্জল একজন দৃষ্টান্ত।

উজ্জল সুন্দর গান করেন। তিনি রাজশাহী শহর থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্থানে গান গেয়ে পরিবারের সদস্য নিয়ে জীবন ধারন করে আসছেন। তিনি নিজে একাই কি বোর্ড বাজিয়ে তাঁর সাথে সাউন্ড সিস্টেম মিলিয়ে গান করে থাকেন। তার সুললিত কণ্ঠে গান শুনে অনেকেই বিমহিত হন এবং টাকাও দেন তাঁকে। কিন্তু নগরীর লাবীব অটোর স্বত্বাধিকারী বাকী বিল্লাহ টাকা নয় উজলের সাউন্ড বক্স এর অবস্থা খারাপ দেখে তাকে একটি রিচার্জেবল সাউন্ড বক্স প্রদান করেন।

এতে করে উজ্জলের দীর্ঘদিনের সমস্যা দূর করে দিলেন তিনি।এ বিষয়ে বাকী বিল্লাহ বলেন, রাজশাহী পদ্মা নদির পাড়ে উজ্জল নামের একজন দৃষ্টি প্রতিবন্ধি অসাধারণ কন্ঠে গান গাইছে। দেখে ও শুনে মুগ্ধ হলাম এবং তার সাথে আলাপ করে জানতে পারলাম যে, তার একমাত্র উপার্জন মাধ্যম হচ্ছে পথে পথে গান গান গাওয়া। বাসায় বৃদ্ধ বাবা-মা ও স্ত্রীসহ ২টি সন্তান রয়েছে। পথে পথে গান করেই তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। তিনি তার অনেক কষ্টের কথা শুনালেন। সেইসাথে তার সাউন্ড সিষ্টেমটি ভাল কাজ করেনা বলে জানান তিনি।

উজ্জলের এই অবস্থা শুনে তাকে ডেকে এনে আমি লাবীব অটোর পক্ষ থেকে ভাল একটি রিচার্জেবল সাউন্ড বক্স তার হাতে তুলে দিলাম। অসহায় ও প্রতি বন্ধিদের সাহায্যে তার মত অন্যদের এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি।
এদিকে উজ্জল বলেন, রিচার্জেবল সাউন্ড বক্স পাওয়াতে তার সমস্যা অনেককাংশে দূর হলো। ভাল সাউন্ড বক্স না হলে গান গেয়ে শান্তি পাওয়া যায়না। আর শ্রোতাদের যদি গান শুনতে ভাল না লাগে তাহলে টাকা দেবে কেন। এখন তিনি নিশ্চিন্তে গান করতে পারবেন এবং ভাল উপার্জন করে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ভালভাবে বেঁচে থাকতে পারবেন বলে জানান উজ্জল। তিনি আরো বলেন, এটা তার জীবনের শ্রেষ্ঠ উপহার।

কোন জনপ্রতিনিধি ও ধনি ব্যক্তি তাকে এ ধরনের উপহার দেয়নি। গান শুনে তারা কিছু টাকা হয়ত দেন। এর ধরনের উপহার প্রদান করায় উজ্জল লাবীব অটোর স্বত্বাধিকারী বাকী বিল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ