বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১, ১০:৫২ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

রাজশাহী বিভাগে জাতীয় শোক দিবস উদযাপিত
স্টাফ রিপোর্টার খোরশেদ আলম / ৩৬ বার
আপডেট : বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১

আজ ১৫ আগস্ট। জাতীয় শোক দিবস। বাঙালির জীবনে সবচেয়ে মর্মান্তিক ও হূদয়বিদারক দিন এটি। ১৯৭৫ সালের এ কালরাতে বাঙালি জাতির ইতিহাসে কলঙ্ক লেপন করেছিল সেনাবাহিনীর কিছু বিপথগামী উচ্ছৃঙ্খল সদস্য। তাদের নির্মম বুলেটে সেদিন ধানমণ্ডির ৩২ নম্বর সড়কের বাসভবনে শাহাদতবরণ করেছিলেন হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

সেদিন ঘাতকরা শুধু বঙ্গবন্ধুকেই হত্যা করেনি, তাদের হাতে একে একে প্রাণ হারিয়েছেন বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিণী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, বঙ্গবন্ধুর সন্তান শেখ কামাল, শেখ জামাল ও শিশু শেখ রাসেলসহ পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রোজি জামাল। পৃথিবীর এ জঘন্যতম হত্যাকাণ্ড থেকে বাঁচতে পারেননি বঙ্গবন্ধুর অনুজ শেখ নাসের, ভগ্নিপতি আবদুর রব সেরনিয়াবাত, তার ছেলে আরিফ, মেয়ে বেবি ও সুকান্তবাবু, বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক শেখ ফজলুল হক মণি, তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী আরজু মনি এবং আবদুল নাঈম খান রিন্টু ও কর্নেল জামিলসহ পরিবারের ১৬ জন সদস্য ও ঘনিষ্ঠজন। কিন্তু ওই সময় দেশে না থাকায় প্রাণে বেঁচে যান বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার ছোট বোন শেখ রেহানা।সারাদেশের মত রাজশাহী বিভাগের প্রতিটি জেলা-উপজেলায় যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি উদযাপিত হচ্ছে।

রাজশাহী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী সরকার নগরীর লক্ষ্মীপুর মোড়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। পরে জেলা পরিষদ কার্যালয়ে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
শোক দিবস উপলেক্ষ্য ইসলামিক ফাউন্ডেশন, শিশু সদন ও সেফহোম, ছোটমনি নিবাস, শিশু বিকাশ কেন্দ্র, প্রতিবন্ধি ফাউন্ডেশন স্কুল ও এতিমখানায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ও কর্মের উপর আলোচনা সভা, হামদ-নাত পরিবেশন, মিলাদ মাহফিল, দোয়া ও বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

দিনটি উপলক্ষ্যে বাদ যোহর অথবা সুবিধামত সময়ে মসজিদসমূহে বিশেষ মোনাজাত এবং মন্দির, গীর্জা ও অন্যান্য ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে আলোচনা ও প্রার্থনা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এদিকে তথ্য ও গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের ব্যবস্থাপনায় মহানগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে বঙ্গবন্ধুর জীবনীর ওপর প্রামাণ্য চিত্র প্রদর্শন করা হচ্ছে। বাংলাদেশ বেতার ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের রাজশাহী কার্যালয় বিশেষ অনুষ্ঠানমালা প্রচার করছে দিবসটির তাৎপর্য তুলে ধরে স্থানীয় সংবাদপত্রসমূহে বিশেষ ক্রোড়পত্র প্রকাশ করা হয়েছে। নগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে
প্রতিটি ওয়ার্ড কার্যালয় থেকে বঙ্গবন্ধুর ঐতিহাসিক ৭ই মার্চের ভাষণ প্রচার করা হচ্ছে।

এছাড়া বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জাতীয় শোক দিবসের সাথে সঙ্গতিপূর্ণ কবিতা আবৃত্তি, রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, আলোকচিত্র প্রদর্শনী, আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর, সমাজসেবা অধিদপ্তর, তথ্য ও গণযোগাযোগ অধিদপ্তর এবং উপজেলা প্রশাসন জাতীয় কর্মসূচির সাথে সামঞ্জস্য রেখে স্ব-স্ব কর্মসূচি প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করছে।

অন্যদিকে দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় পালনে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (রাসিক) বিভিন্ন কর্মসূচির গ্রহণ করে। শনিবার সূর্যোদয়ের সাথে সাথে নগর ভবন ও সকল ওয়ার্ড কাউন্সিলর কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করে উত্তোলন করা হয়। সকাল ১০টায় নগর ভবন চত্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন, কাউন্সিলর, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তাঁর পরিবারের শহীদ সদস্যদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় বাদ জোহর নগর ভবন মসজিদ ও সোনাদিঘী জামে মসজিদসহ সকল জামে মসজিদে দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ