শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ০৫:১২ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

মধুপুরে যৌতুকের জন্য নির্যাতনেরর শিকার গৃহবধু রত্না
মো: আ: হামিদ মধুপুর টাঙ্গাইল প্রতিনিধি / ১২২ বার
আপডেট : শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১

টাঙ্গাইলের মধুপুরের অরণখোলা ইউনিয়নের কাকরাইদ রামকৃষ্নবাড়ী এলাকার মুত নুরুল ইসলামের মেয়ে মোছা: রত্না আকতার নামে এক গৃহ বধু নির্যাতনের শিকার হয়ে মধুপুর উপজেলা স্বাস্হ কমপ্লেক্সে চিকিস্যাধীন আছেন। জানা যায় উপজেলার গাছাবাড়ী এলাকার আব্দুল বাছেদের ছেলে আমিনুর ইসলামের সহিত দুই বৎসর আগে তাদের বিবাহ হয়। বিবাহের পর হতেই পাষন্ড স্বামী তার স্ত্রী রত্নাকে যৌতুকের জন্য চাপ সৃষ্টি করে। কিন্তু এতিম অসহায় রত্নার মা যৌতুকের টাকা না দিতে পারায় নির্যাতনের মাত্রা দিন দিন বেড়েই চলে। কিন্তু রত্নার মা পরের বাড়ীতে কাজ করে কোন ভাবে দিন যাপন করছে বলে রত্নার মা জানান। এ দিকে করোনার কারনে কোন কাজ কর্ম না করতে পারায় তার সংসার এমনিতেই টানা পোড়া। যৌতুকের জন্য চাপ দেয়া টাকা দিব কেমনে। রত্না জানায় আমার স্বামী মাঝে মধ্যেই বলত তোর মার কাছ থেকে যদি টাকা না এনে দিস আমি তোকে জানে মেরে ফেলব। বুধবার(১০জুন) আবার আমাকে টাকা এনে দেয়ার জন্য চাপ দিলে আমি বলি আমার মা টাকা কোথায় পাবে যে আমি তোমাকে টাকা এনে দিব। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে মার পিট করে। রাতে আমি ঘুমিয়ে পড়লে আমার স্বামী, শাশুরী, ও স্বামীর বড়বোন তানিয়া রাত আনুমানিক দশটার দিকে আমার ঘরে প্রবেশ করে অতর্কিত ভাবে আমাকে হামলা করে মারপিট শুরু করে। স্বামী আমিনুর বলে আজ তোকে মেরেই ফেলব এই বলে সে আমার মাথায় ইট দিয়া আঘাত করলে আমি মাটিতে পড়ে যাই। শাশুরী আয়শা বেগম আমার চুল ধরে টানা হেচরা করতে থাকে এবং ননদ তানিয়া এলোপাথারী ভাবে কিল, ঘুষি, লাথি মারিতে থাকে। আমি ডাক চিৎকার করলে আশে পাশের লোকজন এগিয়ে এসে তাদের কবল হতে আমাকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য মধুপুর উপজেলা স্বাস্হ কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। এব্যাপারে আজ রবিবার(১৪ জুন) মধুপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর সুবিচার চেয়ে একটি লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ