শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১, ১১:২৫ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

কুড়িগ্রামের রাজারহাটে বিয়ের দাবিতে ছেলের বাড়িতে অন্বেষণ
প্রশান্ত কুমার, রংপুর বিভাগীয় প্রধান / ৬৮ বার
আপডেট : শনিবার, ১৭ এপ্রিল ২০২১

কুড়িগ্রামের রাজারহাটে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক মেয়েকে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণ করে আসছে,রাজারহাট সদর ইউপির তালতলা নামক এলাকার ,রিপন চন্দ্র(২৫) । স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে কল্পনা রাণী(১৮) কে দীর্ঘদিন ধরে ধর্ষণ করে,এখন বিয়ে করবে না বলে, ছেলে পলাতক থাকায় মেয়ে ছেলের বাড়িতে অন্বেষণ এর ঘটনা ঘটেছে । সরেজমিনে গিয়ে জানা যায় রাজারহাট সদর ইউপির তালতলা নামক এলাকার ,রিপন চন্দ্র(২৫),পিতাঃ মন্টু চন্দ্র এবং একই এলাকার কল্পনা রাণী(১৮),পিতাঃ পরেশ চন্দ্র রায়ের মধ্যকার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সম্পর্কের এক পর্যায়ে নানাভাবে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে শারীরিক সম্পর্ক করে আসছিল।মেয়েটি গত কয়েকদিন আগে বিয়ের কথা বললে ছেলে বিয়ে করতে অস্বীকার করে। ইতিমধ্যে ছেলে বাড়ি থেকে মেয়ের অজান্তে গোপনে পালিয়ে অন্যত্র চলে যায়। ছেলের পিতার কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি কিছুই জানেন না এবং ছেলের সাথে যোগাযোগ নেই বলে গণমাধ্যমকে জানান। মেয়ে ফোনে একাধিকবার ছেলের সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে ফোন বন্ধ পান দিশেহারা হয়ে আত্নহত্যা করার পথ বেছে নিবে মেয়ে মর্মে এলাকাবাসী জানায়।
ছেলের পক্ষে পরিমল মাষ্টার বিবাহ ব্যতিরেকে দুই লক্ষ টাকা দিয়ে বিষয়টি ধামাচাপা দিয়ে সমাধানের প্রস্তাব পাঠায়। কিন্তু মেয়েসহ তার পরিবার তাতে সম্মত না হয়ে মেয়ের বাবা বলেন বিবাহ না করলে টাকার কাছে বিক্রি হবো না,প্রয়োজনে পরিবারের সকলে মিলে একসাথে বিষ খেয়ে আত্নহত্যা করবেন। এরই প্রেক্ষিতে এলাকাবাসীগন একত্রিত হয়ে ছেলেকে বাড়িতে নিয়ে আসার জন্য ছেলের বাবার কাছে কয়েকবার গেলেও কোন সুরহা পাননি।
ফলশ্রুতিতে গত মঙ্গলবার(০৪ আগষ্ট) রাতে শত শত এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে মেয়েকে ঐ ছেলের বাড়িতে নিয়ে যায়,বর্তমানে মেয়ে সেই বাড়িতে অবস্হান করছে। মেয়ে বলে আমি এই বাড়ি থেকে বিয়ে না হলে বের হবো না । বিয়ে না দিয়ে কেউ আমাকে নিয়ে গেলে আমি নিজের জীবন নিজেই শেষ করবো এলাকাবাসীর পক্ষে নিমাই বর্মন,এসকে মিন্টু,বিপ্লব মিয়া,নারু গোপাল শ্যামল জানান,আমরা সকলে মিলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি প্রশাসনের সহযোগিতা নিয়ে বিয়ের ব্যবস্হা করবো ।এলাকার ইউপি সদস্য মৃনাল কান্তি ও বিয়ের বিষয়ে সহমত পোষণ করেছেন।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ