বুধবার, ০৫ অগাস্ট ২০২০, ০২:০৯ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

তানোরে নিন্মমাণের ওষুধ বিক্রির অভিযোগ !!
মোঃ বেনজির আহমেদ   তানোর(রাজশাহী)প্রতিনিধি / ২২ বার
আপডেট : বুধবার, ০৫ অগাস্ট ২০২০

রাজশাহীর তানোর উপজেলার আনাচে-কানাচে ব্যাঙের ছাতার মতো গড়ে উঠেছে অবৈধ ওষুধের (ফার্ম্মসী) দোকান। অনেকে কোনো রকমে কেউ অর্থের বিনিময়ে ওষুধ বিক্রির অনুমোদন নিয়ে ফার্ম্মেসী খুলে বসে চিকিৎসা সেবার পাশাপাশি ওষুধ বিক্রি করছে।অথচ নীতিমালা অনুযায়ী কেবলমাত্র রেজিঃ চিকিৎসকের ব্যবস্থাপত্র দেখে তারা ওষুধ বিক্রি করতে পারবেন। এসব ফার্ম্মেসীতে ঢাকার মিডফোর্ড এলাকা থেকে ভেজাল-নিন্মমাণের ওষুধ বিক্রি করা হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।এদিকে ওষুধ আসল-নকল,ভেজাল না নিম্নমাণের সেটা বোঝার ক্ষমতা নাই সাধারণ মানুষের। আর এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে একশ্রেণীর ওষুধ ব্যবসায়ী এসব অপকর্ম করছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি বলেন, গোল্লাপাড়া বাজারের মেসার্স নয়ন মেডিসিন কর্নার, শিউলি ফার্ম্মেসীসহ বিভিন্ন দোকানে ঢাকার মিডফোর্ড এলাকার নিম্নমাণের ওষুধ, যৌন উত্তেজক, নারীর ভ্রণ নস্টের ট্যাবলেট ও সরকার নিষিদ্ধ এসি আই এর লোপেন্টা, স্কয়ারের পেন্টাডল, অপসোনিনের ট্যাপেনডল, এসকেএফ

এর ট্যাপেন্টা বিক্রি করা হয়।
অন্যদিকে একশ্রেণীর ওষুধ ব্যবসায়ী এসব অপকর্ম নির্বিঘ্ন করতে কেউ প্রেসক্লাবের সদস্য, কেউ কথিত সাংবাদিক, কেউ প্রকাশক ইত্যাদি নানাভাবে এরা অবৈধ ব্যবসা করছে। সংশ্লিস্ট বিভাগের দায়িত্বশীল একশ্রেণীর কর্মকর্তা মাসিক মাসোয়ারার বিনিময়ে এসব জেনেও না জানার অভিনয়ে এড়িয়ে চলেছে। কারণ এসব ফার্ম্মেসীতে তাদের নিয়মিত অভিযান পরিচালনার কথা থাকলেও অভিযান তো পরের কথা তারা কোনো খোঁজখবর নেয় না।স্থানীয় এলাকাবাসী উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ওষুধের দোকানে নিয়মিত ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করার দাবি করেছেন। এব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা(টিএইচও) ডাঃ রোজীআরা খাতুন বলেন, কারো বিরুদ্ধে সুনিদ্রিস্ট অভিযোগ পেলে অবশ্যই যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।এব্যাপারে মেসার্স নয়ন মেডিসিন কর্ণার ও শিউলি ফার্ম্মেসীর স্বত্ত্বাধিকারী নয়ন কুমার ও প্রশান্ত কুমার এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।#

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ