রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৮:২৮ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

তাড়াইল বাজারে বৃষ্টি হলেই জলাবদ্ধতা।। নেই পর্যাপ্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা !!
ছাদেকুর রহমান রতন: তাড়াইল (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি / ১০০ বার
আপডেট : রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০

কিশোরগঞ্জ  তাড়াইল উপজেলা সদর বাজারে সামান্য বৃষ্টি হলেই সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। নেই পর্যাপ্ত ড্রেনেজ ব্যবস্থা। বাজারের রাস্তাগুলোতে পেক কাঁদায় ঢেউ খেলে মানুষের পায়ে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, উপজেলা সদর বাজারের মূল গলিসহ সবকটি সরু গলিতে বৃষ্টির পানি জমে কর্দমা ও জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। এতে করে তাড়াইল সদর বাজার ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষের নানান সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। বর্তমানে তাড়াইল সদর বাজারে প্রায় পাঁচ শতাধিক দোকান রয়েছে। ৬/৭টি সরু গলি ও ১ টি মূল গলি রয়েছে। মাঝখানের মূল গলিতে একটি ড্রেন থাকলেও সেই ড্রেনটিতে দীর্ঘদিন ধরে ময়লা আবর্জনা জমে থাকার কারণে জলাবদ্ধতা বেড়েছে এবং মশার প্রকোপ বৃদ্ধি পাচ্ছে। ডেঙ্গু মশার বংশ বিস্তারের আশঙ্কা করছেন বাজারের ব্যবসায়ীরা।
সবচেয়ে বেশি নাজুক অবস্থায় রয়েছে বাজারের পূর্ব পাশের মাছ মহালের গলিটি। পাশে নদী থাকা সত্যেও পানি প্রবাহিত হওয়ার ব্যাবস্হা না থাকায় সমান্য বৃষ্টি হলেই পানি ও কাদায় একাকার হয়ে যায়।
উল্লেখ্য, প্রতি বছর এই বাজার হতে মোটা অঙ্কের টাকা রাজস্ব আয় করে থাকেন সরকার। কিন্তু বাজার কমিটির একটু সুদৃষ্টির অভাবে ড্রেনেজ ব্যবস্থা থমকে আছে বলে মনে করছেন ব্যবসায়ীরা। অনেকের প্রশ্ন, বাজারের ড্রেন পরিস্কার করার দায়িত্ব কার?

এ বিষয়ে তাড়াইল সদর বাজারের একাধিক মুদি ও অন্যান্য ব্যাবসায়ীরা জানান, একটু বৃষ্টি হলেই রাস্তার দু’পাশে পানি জমে কাদায় একাকার হয়ে যায়। এতে করে আমাদের রোগ-বালাইসহ বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে। ড্রেনের দুর্গন্ধের কারণে ব্যবসা করতে কষ্ট প্রতিটি গলিতে ড্রেন এর ব্যবস্থা আমাদের কষ্ট হচ্ছে। তাই আমরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জোড়ালো দাবি জানাচ্ছি, নতুন ড্রেন তৈরি সহ প্রতিটি গলিতে যেন পানি নিস্কাশনের ব্যবস্থা করা হয়।
এব্যপারে তাড়াইল উপজেলা নির্বাহী অফিসার তারেক মাহমুদ জানান, নতুন ড্রেন করার জন্য উপজেলা এলজিইডি কার্যালয়ে প্রস্তাবনা আছে। আশা করছি অচিরেই কাজ শুরু করা হবে।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ