শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ১১:০৭ অপরাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

পলাশে কোরবানির গরু হোম ডেলিভারি দিচ্ছে হাম্বা ফার্ম
বিল্লাল হোসেন , নিজেস্ব প্রতিবেদক / ১৪২ বার
আপডেট : শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০

একদিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েই চলেছে অন্য দিকে মুসলিম ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল আজহাও অতি সন্নিকটে। এমন অবস্থায় নরসিংদী জেলায় ঈদকে ঘিরে কিছু স্থানে কোরবানির পশুর হাট সীমিত পরিসরে বসলেও অনেকাংশেই মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি। পশুর হাটে গিয়ে করোনা ঝুঁকিতে পড়তে হবে এমন আশংকায় নরসিংদী জেলার ক্রেতাদের জন্য হোম ডেলিভারি ও অনলাইন ক্রয় সেবা চালু করেছে হাম্বা ফার্ম।

এই ফার্মটি নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ডাংগা ইউনিয়ন এর ভিরিন্দা গ্রামে অবস্থিত। যার মালিকানায় রয়েছেন দেশের স্বনামধন্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ইজি ফ্যাশন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইছাদ চৌধুরী। যার অক্লান্ত পরিশ্রমে হাম্বা ফার্মও আজ সবার কাছে একটি বিশ্বস্ত খামার হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। অনলাইনে ও মোবাইলে গরু ক্রয় করতে যোগাযোগ নাম্বার ০১৩১৬০৮২৬৯৪।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বিশাল এক খোলা মেলা মাঠে গড়ে উঠেছে হাম্বা ফার্ম। চারপাশের প্রাকৃতিক সৌন্দর্য যে কাউকে আকৃষ্ট করবে অনায়াসে। এ খামারের ভিতরের পরিস্কার পরিচ্ছন্নতাও চোখে পড়ার মতো। সম্পূর্ণ দেশিয় পদ্ধতিতে গরু মোটাতাজাকরণ ও পরিচর্যার কাজে ব্যস্থ সময় পার করে যাচ্ছেন এখানে নিয়োজিত এক ঝাঁক তরুণ যুবক। তারা বিভিন্ন দানাদার খাবারের পাশাপাশি ফার্মের গরুগুলোকে ঘাস ও লতাপাতা খাওয়াচ্ছেন।

খামারের পাশেই গরুর পুষ্টিকর খাদ্য হিসেবে প্রায় ১৫ বিঘা জমিতে পানচুং ঘাষের চাষ করা হয়েছে। এছাড়াও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনেই গরু লালন পালনের কাজ করে যাচ্ছেন তারা। খামারের গরু গুলোর ওজনও প্রায় ৪০০ থেকে ৭০০ কেজি পর্যন্ত।

হাম্বা ফার্মের মালিক ইছাদ চৌধুরী বলেন,
গার্মেন্টস ব্যবসার পাশাপাশি অনেকটা শখের বসে এ হাম্বা ফার্মটি করেছি। এদিকে ত্যাগ ও মহিমায় উদ্ভাসিত পবিত্র ঈদুল আজহাও অতি সন্নিকটে। প্রতিবছর এই সময়ে ধুমধাপ ভাবে কোরবানির পশুর হাট বসে। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে হাটে গিয়ে গরু বিক্রি করা অনেকটাই ঝুঁকি থেকে যায়। তাই সবার সুরক্ষার কথা চিন্তা করেই সুস্থ সবল গরু অনলাইন বিক্রি করার এবং হোম ডেলিভারি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

তিনি আরও বলেন, আমার খামারের প্রতিটি গরু অত্যন্ত যত্নসহকারে লালন পালন করা হয়েছে। এছাড়া কোন গরুই কৃত্রিম উপায়ে মোটাতাজা করা হয়নি। সম্পূর্ণ দেশিয় পদ্ধতি ও খাবারের মাধ্যমে মোটা তাজা করা হয়েছে। আপনাদের অনুরোধ করবো আপনারা আমার খামারে এসে গরু গুলো দেখে পছন্দসই ক্রয় করে নিন। ঈদের আগের দিন পর্যন্ত আমরা ডেলিভারি দিবো।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ