শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ০৫:১১ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

হত্যা মামলায় উদ্দেশ্য মুলক আসামী করায় মধুখালীতে মানববন্ধন কর্মসূচী রুপনিল জনসভায়
সুজল খাঁন ফরিদপুর মধুখালী প্রতিনিধিঃ / ৯৪ বার
আপডেট : শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১

ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার কোড়কদি ইউনিয়নের কাটাখালী গ্রামে ২ জুলাই বৃহস্পতিবার একটি হত্যাকান্ডকে কেন্দ্র করে উপজেলার বাগাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মতিয়ার রহমান খানসহ তাঁর পরিবারের ৬ সদস্যকে হত্যা মামলার আসামী করার প্রতিবাদে ইউনিয়নবাসীর আয়োজনে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের বাগাট বাজারে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে ।

কোরকদি ইউনিয়নের কাটাখালী গ্রামের মোঃ সিদ্দিক মোল্যা (৬১) প্রতিপক্ষের হামলায় নিহত হন। উক্ত ঘটনায় মধুখালী থানায় বাগাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ মতিয়ার রহমান খাঁন, বাগাট বাজার বনিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শাহাদত হোসেন খান লাল, ফরিদপুর জেলা ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক শামীম রেজা রনি, বাগাট ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ রাজু খাঁনসহ একই পরিবারের ছয় সদস্যসহ ৬০ জনকে আসামী করে মধুখালী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন নিহতের ছেলে। মামলা নং ০৪ তারিখ ৪ জুলাই ২০২০ খ্রিঃ । দায়ের করা এজাহারে আরও অজ্ঞাতনামা ১৫/২০জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।
আজ বেলা ১১ টায় বাগাট বাজার এলাকায় মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করা হলেও মানবন্ধন কর্মসূচী জনসভায় রূপ নেয়। মানববন্ধন কর্মসূচি জনসভায় রূপ নিলে সহকারী পুলিশ সুপার মধুখালী সার্কেল মো. আনিসুজ্জামান লালন ও মধুখালী থানার পুলিশ পরিদর্শক মোঃ আমিনুল ইসলামের অনুরোধে আয়োজকেরা কর্মসূচি সংক্ষিপ্ত করেন।
এসময় রক্তব্য রাখেন ফরিদপুর জেলা পরিষদের সদস্য ও বাগাট ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক দেব প্রসাদ রায় দেবু । ২৩ এপ্রিল ২০১৬ খ্রিঃ বাগাট ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বর্তমান চেয়ারম্যান মোঃ মতিয়ার রহমান খাঁনের ভাই ও সাবেক সেনা সদস্য মোঃ আতিয়ার রহমান খাঁনকে হত্যা করা হয়। সেই হত্যাকান্ড থেকে আসামীদের বাঁচাতে ও প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে এই হয়রানী মূলক মামলা দায়ের করা হয়েছে মতিয়ার রহমান খানসহ তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে। তিনি আরো বলেন আজকের মানববন্ধন কর্মসূচি কোন হত্যাকারীকে রক্ষার জন্য নয়, শুধুমাত্র নিরীহ ও ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট নয় এমন ব্যক্তিদের মামলা হতে অব্যহতি প্রদানের জন্য। তিনি বলেন দুঃখজনক হত্যাকান্ডটি সংঘটিত হয় পাশ্ববর্তী কোড়কদি ইউনিয়নে কতিপয় স্বার্থনেশী মহলের ইন্ধনে কৃষক সিদ্দিক মোল্যার লাশ নিয়ে আসা হয় বাগাট বাজারে এবং সেখানে বিচারের দাবীতে বিভিন্ন শ্লোগানের মাঝে ‘‘জয় পাকিস্তান’’ শ্লোগান দেওয়া হয়। যা একটি স্বাধীন দেশে অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক ও রাষ্ট্র বিরোধী কর্মকান্ড বলে মনে করি। মধুখালী থানা পুলিশের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন তদন্তের মাধ্যমে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিন আমরাও আপনাদের সার্বিক সহযোগিতা করবো। আমরা হত্যাকান্ডের সুষ্ঠু বিচার দাবী করি কিন্তু ঘটনার সাথে জড়িত নয় এমন কাউকে যেন হয়রানী করা না হয়। আওয়ামীলীগ সরকার হত্যার রাজনীতি সমর্থন করে না। প্রতিটি অপরাধের সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে জননেত্রী শেখ হাসিনাও কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনা দিয়ে থাকেন। ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ শাহজাহান মোল্যা উক্ত কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন। মানববন্ধন কর্মসূচিতে আরও উপস্থিত ছিলেন মধুখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুণ-অর-রশিদ দুলাল, উপজেলা আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক ইউসুফ হোসেন মোল্যা, বাগাট বাজার বনিক সমিতির সভাপতি মির্জা জাকির হোসেন প্রমুখ।
কর্মসূচির বিষয়ে জানতে চাইলে মধুখালী থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আমিনুল ইসলাম বলেন একটি হত্যা মামলার প্রেক্ষিতে আজকের মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। কিন্তু করোনাকালীন পরিস্থিতির কারণে কর্মসূচিটিকে সংক্ষিপ্ত করার অনুরোধ জানালে তারা আমাদের আহবানে সাড়া দিয়ে কর্মসূচিটিকে সংক্ষিপ্ত আকারে শেষ করেন। তিনি বলেন নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যে ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করা হবে হলেও নিরপরাধ কাউকে হয়রানী করা হবে না।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ