বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ০১:৫২ অপরাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

রাজশাহীতে করোনায় মৃত ২ লাশ নিল না স্বজনরা
স্টাফ রিপোর্টার খোরশেদ আলম / ৭৬ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০

রাজশাহীতে মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে আরও দুইজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগির মৃত্যু হয়েছে। যাদের মধ্যে একজন মারা যান রোববার সকাল ১০টার দিকে। অপরজন মারা গেছেন শনিবার মধ্যরাতে। তবে মারা যাওয়া দুইজনের লাশ নিতে আসেনি তাদের স্বজনরা।

মৃত ব্যক্তিরা হলেন, রাজশাহীর চারঘাটের মোয়াজ আলীর ছেলে হাবিবুর রহমান (৫৫) ও নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার জামগ্রামের আজাদ আলী (৩০)।

রামেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস জানান, করোনা আক্রান্ত হাবিবুর রহমানের শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় শনিবার তাকে রামেক হাসপাতালের ২৯ নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রোববার সকাল ১০টার দিকে তিনি মারা যান।

ডা. সাইফুল জানান, হাসপাতালে ভর্তির সময় হাবিবুর রহমানের সঙ্গে তার স্বজনরা ছিলেন। তবে মৃত্যুর পর তাদের কাউকে দেখা যায়নি। পরিবারের সদস্যদের জানানো হলেও লাশ গ্রহন করার জন্য কেউ আসেনি। লাশ কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনকে দেয়া হয়েছে। তারা বেওয়ারিশ হিসেবে লাশ দাফন করবে বলেও জানান হাসপাতালের এই কর্মকর্তা।

এর আগে শনিবার দিবাগত দেড়টার দিকে রামেক হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) নওগাঁর পত্নীতলা উপজেলার আজাদ আলী নামের এক ব্যক্তির মৃত্যু। তার সঙ্গে ভাই এবং ভাবি ছিল। মারা যাওয়ার পর তাদের আর পাওয়া যায়নি। তারা নিজেদের মুঠোফোনও বন্ধ করে দেয়। ফলে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত লাশটি হাসপাতালেই ছিল। পরে আজাদ আলীর লাশ কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনে দেয়া হয়। তারা বেওয়ারিশ লাশ হিসেবে দাফন করবে।

এদিকে, রোববার দুপুর পর্যন্ত গত ২৪ ঘন্টায় রাজশাহী জেলায় ৯৫ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। যার মধ্যে নগরীর ৭৩ জন। এছাড়াও গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন ১১ জন। রোববার জেলা সিভিল সার্জন ডা. এনামুল হক এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘন্টায় রাজশাহীর দুইটি ল্যাবে ৩৭৬ জনের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এর মধ্যে রাজশাহী ৯৫ জনের পজিটিভ এসেছে। এ নিয়ে রাজশাহীতে করোনা আক্রান্ত রোগির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১০৮৫ জনে। এর মধ্যে এ পর্যন্ত মারা গেছেন ১০ জন। আর সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন ১৫৬ জন।

রাজশাহীতে করোনা আক্রান্তদের মধ্যে সবচেয়ে সিটি করপোরেশন এলাকার ৭৯৯ জন। এছাড়া জেলার বাঘা উপজেলায় ২৩, চারঘাটে ৩১, পুঠিয়ায় ১৪, দুর্গাপুরে ১৬, বাগমারায় ৩২, মোহনপুরে ৪৩, তানোরে ৪৩, পবায় ৭৪ এবং গোদাগাড়ীতে ১০ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন।

এ পর্যন্ত রাজশাহী নগরে ছয়জন এবং বাঘা, চারঘাট, মোহনপুর ও পবায় একজন করে ১০ জন মারা যান। আর সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন নগরীতে ৫৫ জন, বাঘায় চারজন, চারঘাটে ১৩ জন, পুঠিয়ায় ১২ জন, দুর্গাপুরে তিনজন, বাগমারায় ১৬ জন, মোহনপুরে ৩২ জন, তানোরে ১৩ জন, পবায় ৭ জান ও গোদাগাড়ীতে একজন।

অপরদিকে, রাজশাহী বিভাগে আট জেলায় ভয়ানক হয়ে উঠছে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি। প্রতিদিন বাড়ছে সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২৬২ জনের নমুনায় করোনা পাওয়া গেছে। এছাড়া সুস্থ হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন আরও ১৪৪ জন এবং মারা গেছেন ১ জন করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী।

রোববার সকাল পর্যন্ত রাজশাহী বিভাগে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৮৫১ জনে। এ বিভাগে এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৯৫ জন এবং সুস্থ্য হয়েছেন ১৯৪০ জন। রোববার দুপুরে এক প্রতিবেদনে রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তারের পরিচালক ডা. গোপেন্দ্র নাথ আচার্য্য এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন শনাক্তের মধ্যে রাজশাহীর ৯৬ জন, নওগাঁর ১৭ জন, নাটোরের ২৯, জয়পুরহাট ৩ জন, বগুড়ায় ৬১ জন, সিরাজগঞ্জে ৩০ জন ও পাবনার ২৬। তবে বিভাগের অপর জেলা চাঁপাইনবাবগঞ্জে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কোন রোগি শনাক্ত হয়নি বলে তিনি জানান।

ডা. গোপেন্দ্র আরও জানান, রাজশাহী বিভাগে এ পর্যন্ত ৬৮৫১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে সর্বোচ্চ বগুড়ায় ৩৩০৭ জন আক্রান্ত। এছাড়াও মহানগরীতে ৭৯৯ জনসহ রাজশাহী জেলায় ১০৮৫ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ১০১ জন, নওগাঁয় ৫৫৯ জন, নাটোরে ২৪৪ জন, জয়পুরহাটে ৪৫৪ জন, সিরাজগঞ্জে ৬২৭ জন ও পাবনায় ৪৭৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

তিনি বলেন, সরকারি হিসেবে এ পর্যন্ত বিভাগের আট জেলার মধ্যে ছয় জেলায় মৃতের সংখ্যা ৯৫ জন। এর মধ্যে রাজশাহীতে ১০ জন, নওগাঁয় সাতজন, নাটোরে একজন, বগুড়ায় ৬১ জন, সিরাজগঞ্জে আটজন ও পাবনায় আটজনের মৃত্যু হয়েছে করোনাভাইরাসে। সরকারি হিসেবে এখনো জয়পুরহাট ও চাঁপাইনবাবগঞ্জে কোন করোনা আক্রান্ত রোগি মারা যায়নি।

গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ্য হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরেছেন আরও ১৪৪ জন। এ নিয়ে বিভাগে সুস্থ্য হয়েছেন ১৯৪০ জন করোনা আক্রান্ত রোগি। এর মধ্যে রাজশাহীর ১৫৬, চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৬১ জন, নওগাঁয় ৩৪৩ জন, নাটোরে ৭৬ জন, জয়পুরহাট ১৫১ জন, বগুড়ায় ৯৩৭ জন, সিরাজগঞ্জ ৬৭ জন ও পাবনায় ১৪৯ জন।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ