বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ১০:০৪ অপরাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

মধুখালীতে সড়ক জুড়ে কাদামাটি, গ্রামবাসী দুর্ভোগে
সুজল খাঁন ফরিদপুর মধুখালী প্রতিনিধিঃ / ৮৬ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০

ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার গাজনা ইউনিয়নের গাজনা-বড়াইল সড়কে কাদামাটিতে একাকার হয়ে পড়ায় জনচলাচলে ব্যবহৃত একটি সড়কের উন্নয়ন না হওয়ায় চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছে গ্রামবাসী। সড়কটির অনেকাংশই এখনো কাঁচা। বিশেষ করে এই বর্ষা মৌসুমে ওই সড়কের বেশিরভাগ অংশ জুড়ে কাদামাটি হয়ে একেবারেই চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে রাস্তাটি।

গাজনা ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের বড়াইল উত্তর ও দক্ষিণ পাড়া মহল্লার মিজান দোকানের মোড় এই সড়কটি মধুখালী -মথুরাপুর আঞ্চলিক সড়কের সাথে সংযুক্ত। সড়কটি গাজনা- বড়াইল মিজান ইস্ট মোড় থেকে শুরু হয়ে একটি অংশ বড়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পাশে দিয়ে রোমজান মোল্যা বাড়ি পর্যন্ত এবং আরেকটি অংশ আফছার মিদ্রাবাড়ী পাশ দিয়ে মিজানের দোকান সড়ক পৌঁছে শেষ হয়েছে। গাজনা বাজার থেকে শুরু হওয়া সড়কটি কিছু স্থান ইট বিছানো। প্রায় এক থেকে দেড় কিলোমিটার সড়কটির অনেকাংশ এখনো কাঁচা।

ওই এলাকার বাসিন্দা মনিরুল ইসলাম মুন্নু ও মিজান জানান, এজন্য সাধারণ পথচারীসহ ইজিবাইক ও ভ্যানচালকদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হয়। ওই এলাকার ইজিবাইক চালক গিয়াসউদ্দিন শেখ জানান, প্রতিদিন কাদামাটির মধ্যে দিয়ে ইজিবাইক নিয়ে বের হতে খুবই কষ্ট হয়। কিন্তু জীবিকার তাগিদে বের হতেই হয়। সাধারণ গ্রামবাসী জানান, এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে কিন্তু সড়কটির উন্নয়ন না হওয়ায় তাদের চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। এই এলাকার জনগণের বিভিন্ন ধরনের মালামাল বাজারে বিক্রয় করার জন্য অনেক ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

এ ব্যাপারে ৭ নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য মো. ইদ্রিস শেখ বলেন, আমি মেম্বার থাকা অবস্থায় সাইডে মাটি কেটে রাস্তা নিয়েছিলাম এই রাস্তার ইটের রাস্তা করার জন্য অনেক ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা চেয়ারম্যান এবং এমপি মহোদয় নিকট জানালে বলেন উন্নয়নের কাজ আসলে আপনাদের ইটের রাস্তা করা হবে। আশ্বাস দিয়ে থাকেন কিন্তু অন্যান্য রাস্তা কাজ হচ্ছে কিন্তু আমাদের রাস্তার কাজ হচ্ছে না এখন পর্যন্ত রাস্তার উন্নয়নমূলক কাজ করা সম্ভব হয়নি। অনেক মানুষ ওই সড়কটি দিয়ে চলাচল করে। তাই সড়কটির উন্নয়ন করা জরুরী। ইউনিয়ন পরিষদের গত সভার রেজুলেশনে সড়কটির উন্নয়নের জন্য তালিকাভুক্তও করেছি। আশা করছি সামনে গ্রামবাসীর দুর্ভোগ লাঘব হবে।

ইউপি চেয়ারমান মো.মান্নান মোল্যা বলেন, বর্তমানে করোনা পরিস্থিতির কারণে আমাদের সকল উন্নয়ন কাজই আপাতত স্থগিত রয়েছে। এজন্য এখনই সড়কটির উন্নয়নে কোন প্রকল্প নিতে পারছিনা। তবে জনগণ খুবই দুর্ভোগে পড়লে হয়তো দু’এক গাড়ি বালি ফেলে সাময়িক চলাচলের ব্যবস্থা ছাড়া এই মুহুর্তে সড়কটির উন্নয়নে কোন প্রকল্প হাতে নেয়া সম্ভব নয় বলে তিনি জানান।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ