বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১, ০২:৩৯ পূর্বাহ্ন

  • বাংলা বাংলা English English

অনৈতিক কাজের অভিযোগে ধনবাড়ীর কেন্দুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ওবায়দুলের বিরুদ্ধে পূণঃ তদন্ত
সৈঃ সাজন আহমেদ রাজু ধনবাড়ী (টাঙ্গাইল) থেকে : / ১৪২ বার
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১

প্রবাদে আছে শিক্ষক মানুষ গড়ার কারীগর। আর এরি ব্যতিক্রম ঘটেছে টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী উপজেলার বীরতারা ইউনিয়নের কেন্দুয়াতে, পাইস্কা ইউনিয়নের কয়ড়া গ্রামের মো: এহতেশামুল হকের ছেলে মোঃ ওয়াবাদুল ইসলাম গত ১৮/০২/২০১৯ ইং তারিখে কেন্দুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ে যোগদান করেন এরপর থেকে তার ভেতরে সমকাম ভাব জেগে যায়। শুরু হয় তার অনৈতিক কার্যকলাপ দশম শ্রেণী ছাত্রীদের র্স্পকাতর স্থানে হাত দেয়া, ছাত্রদের বাড়ীতে রাত্রী যাপন করা, সমকামী কাজে বাধ্য করা এবং ছাত্রদের জন্য মোটর সাইকেল কিনে দিয়ে তাদের আকৃষ্ট করা। এ বিষয়ে ছাত্র, ছাত্রী শিক্ষক অভিভাবক সহ সর্ব শ্রেণীর মানুষ অবগত হলে স্কুলে মানব বন্ধন ও ততকালীন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বরাবর দরখাস্ত দেয় অভিভাবকরা। এরি প্রেক্ষীতে গত ১৭/০৭/২০১৯ এবং ০১/০৮/২০১৯ ও ০৮/০৮/২০১৯ ইং তারিখে তাকে কারন দর্শনো নোটিশ প্রদান করেন ম্যানেজিং কমিটি। তাতে কোন জবাব না দেয়ায় গত ১৫/০৯/২০১৯ ইং তারিখে ওবায়দুল ইসলামকে সাময়িক ভাবে বরখাস্ত করা হয়। অধিকতর সচ্ছতার লক্ষে আরবি স্ট্রেশরন বোর্ড গত ২৪ জানুয়ারি ২০২১ইং তারিখে ধনবাড়ী সহকারী কমিশনার (ভূমি) হাসান মোঃ হাফিজুর রহমানকে আহŸায়ক করে ধনবাড়ী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোমিনুল ইসলাম এবং ধনবাড়ী কলেজিয়েট মডেল স্কুলের প্রধান শিক্ষক এস.এম. মাসুদ কবিরকে তদন্ত কমিটির সদস্য করে ৭ (সাত) কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। এডহক কমিটির সভাপতি ধনবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ শামছুল আরেফিন পূণঃ তদন্ত কমিটি গঠন করে প্রতিবেদন প্রদানের জন্য গত ৩১ জানুয়ারি ২০২১ ইং তারিখে কেন্দুয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সরেজমিনে তদন্ত করতে যায় তদন্ত কমিটি। তদন্তকালে উপস্থিত ছিলেন অধ্যাপক সুলতান মাহমুদ, সাবেক ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আহমেদ আল ফরিদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান, সাবেক প্রধান শিক্ষক বাবু প্রফুল্ল্য চন্দ্র বসাক, অভিভাবক সদস্য মোঃ গিয়াস উদ্দিন, দাতা সদস্য মোঃ কামরুল হাসান, সহকারি শিক্ষক রায়হানুল আলম, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থার ধনবাড়ী উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জীবন মাহমুদ শক্তি, সাবেক ইউপি সদস্য আজাহারুল ইসলাম সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তি বর্গ। অন্যান্য উপস্থিতিরা এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং অভিযুক্ত শিক্ষকের অপসারণ দাবি জানায়।

 

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরির আরো সংবাদ